হুদার মামলার তদন্ত শুরু সিনহার বিরুদ্ধে

সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এস কে) সিনহার বিরুদ্ধে তৃণমূল বিএনপির নেতা নাজমুল হুদার করা দুর্নীতির মামলার তদন্ত করবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সংস্থাটির চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বুধবার সকালে সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘আদালতের মাধ্যমে মামলাটির এফআইআর কপি দুদকে পৌঁছেছে। এখন এ বিষয়ে তদন্ত করা হবে। তবে এখনও তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়নি।’

গত ২৭ সেপ্টেম্বর শাহবাগ থানায় করা মামলায় নাজমুল হুদা অভিযোগ করেন, সিনহা প্রধান বিচারপতি থাকাকালে তার দুই মামলার মীমাংসার কথা বলে তিন কোটি ২৫ লাখ টাকা ঘুষ চেয়েছেন।

মামলাটি আদালতে উঠলে সেটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

নাজমুল হুদা তার রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকেই বিএনপির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। হয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য, একাধিকবার মন্ত্রিত্বও করেছেন। তবে বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক ছেদের পর এখন আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটের আলোচনা চলছে তার।

নাজমুল হুদার অভিযোগ অনুযায়ী এসকে সিনহা তার কাছে ঘুষ চেয়েছেন কিন্তু সেই ঘুষের কোনও লেনদেন হয়নি। এই অবস্থায় দুদক আইনে তা তদন্তের এখতিয়ার আছে কি না- এমন প্রশ্নে সংস্থাটির চেয়ার‌ম্যান বলেন, ‘আদালত থেকে এফআইআর কপি আমরা পেয়েছি। তদন্ত আমাদের করতে হবে। আইনে কিছু না থাকলে এটি আসত না।’

এসকে সিনহা অবশ্য দেশে নেই। সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী মামলার চূড়ান্ত রায়ে আইন, সংসদ ও রাজনৈতিক সংস্কৃতি নিয়ে নানা মন্তব্যের পর টানাপড়েনের মধ্যে ২০১৭ সালের ১৩ অক্টোবর তিনি দেশ ছাড়েন। পরে দেশে না ফিরে নভেম্বরের শুরুতে তিনি পদত্যাগপত্র পাঠান সিঙ্গাপুর দূতাবাসের মাধ্যমে।

প্রথমে সিনহা কানাডায় ছিলেন মেয়ের কাছে। পরে তিনি যান যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে তার ভাইয়ের নামে বাড়ি কেনা হয়েছে এবং সেটি আসলে সিনহারই বলে প্রচার আছে।

যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সাবেক প্রধান বিচারপতিকে জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন হলে কী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে প্রশ্নে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমার জানা মতে জিজ্ঞাসাবাদ করা অনেক পরের বিষয়। তবে কখন, কীভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে তা তদন্ত কর্মকর্তা নির্ধারণ করবেন।’

এসকে সিনহা দেশের বাইরে যাওয়ার পর সুপ্রিম কোর্ট থেকে এক বিবৃতিতে তার বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থপাচার, নৈতিক স্খলনসহ মোট ১১টি গুরুতর অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়। তবে এসব বিষয়ে এখনও দৃশ্যমান কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। যদিও সিনহার ব্যাংক হিসাবে চার কোটি টাকা জমা দেয়ার বিষয়ে দুই ব্যবসায়ীকে একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।






Related News

  • কারগারে আদালত স্থাপনে সংবিধান লঙ্ঘন হয়নি : অ্যাটর্নি জেনারেল
  • হাইকোর্টের নির্দেশ শহিদুল আলমকে ডিভিশন দিতে
  • আরো ১১ মামলা দায়ের ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে
  • গ্রেফতার হলেন সেই এসআই ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায়
  • জাসদের কেন্দ্রীয় নেত্রী আটক ইয়াবাসহ
  • আগামী সেপ্টেম্বরে রায় ২১আগস্ট গ্রে‌নেড হামলার মামলা
  • ৩০ হাজার পিস ইয়াবা: আটক পুলিশ কর্মকর্তা