কাতার স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ দিচ্ছে

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারে নাগরিকদের তুলনায় প্রবাসীদের সংখ্যা অনেক বেশি। বিভিন্ন দেশ থেকে আগত এসব প্রবাসীরা দীর্ঘদিন ধরেই সেখানে বসবাস করে আসছেন। উপসাগরীয় দেশ হিসেবে কাতারই প্রথমবারের মতো এই প্রবাসীদের স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি দিতে যাচ্ছে।

ইতোমধ্যে দেশটির আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি এ সংক্রান্ত একটি নতুন আইন জারি করেছেন। তাতে বলা হয়েছে, প্রতিবছর ১০০ জন করে বিদেশি কাতারে স্থায়ী বসবাসের অনুমতি পাবে।

আল-জাজিরা জানিয়েছে, এক্ষেত্রে কাতারি মায়ের সন্তান ও ২০ বছরের বেশি সময় ধরে কাতারে বসবাস করা বিদেশি নাগরিকদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। তবে তাদের কর্মদক্ষতার বিষয়টিও বিশেষ বিবেচনায় নেওয়া হবে।

এছাড়া আইনে আরও বলা হয়েছে, প্রবাসী শ্রমিকরা নিজ ইচ্ছায় দেশে ফেরার অনুমতি পাবেন। এ জন্য তাদের নিয়োগকর্তার অনুমতি বা এক্সিট ভিসার প্রয়োজন হবে না।

কাতারে বর্তমানে প্রায় ২৭ লাখ বিদেশি নাগরিক বসবাস করেছেন। তাদের মধ্য থেকে যারা স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি পাবেন, তারা কাতারিদের সমান সুবিধা পাবেন।

নতুন এ পদক্ষেপকে কাতারের ‘ভিশন ২০৩০’ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, আগামী দশ বছরের মধ্যে আধুনিক কাতার গড়ার উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা নিয়েছেন শেখ তামিম। তার ওই পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই নতুন এ আইন জারি করা হয়েছে।






Related News

  • নাদিয়া-মুকওয়েজ শান্তিতে নোবেল জয়ী
  • কানাডার পার্লামেন্ট কেড়ে নিলো সুচির নাগরিকত্ব
  • রাশিয়া আসাদকে এই অস্ত্র দিচ্ছে ইসরাইলকে শায়েস্তা করতে…
  • বিজেপি সভাপতি : আসামে একজন বাংলাদেশিও থাকবে না
  • যৌথ সেনা মহড়ার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করল নেপাল
  • যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দেবে রোহিঙ্গা সংকটকে : বার্নিকাট
  • মিয়ানমার সেনাবাহিনী অবশেষে ক্ষমা চাইল