সব উন্নয়ন বন্ধ হয়ে যাবে আ. লীগ ক্ষমতায় না আসলে: বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, তিন মাস পর আগামী ডিসেম্বর মাসে নির্বাচন৷ মনে রাখবেন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না আসলে সকল উন্নয়ন বন্ধ হয়ে যাবে৷ প্রথম দিনেই এক লক্ষ লোককে হত্যা করবে৷ এবং কেউ বাড়ি ঘরে থাকতে পারবেন না৷ এ কথাটা আপনাদের মনে রাখতে হবে৷

রোববার বিকেলে ভোলার বাংলা স্কুল মাঠে শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন উপলক্ষ্যে জন্মাষ্টমীর র‌্যালীর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন৷

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে আপনারা শান্তিতে থাকবেন৷ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের প্রধানমন্ত্রী৷ দেশকে তিনি উন্নয়নের রোল মডেলে রূপান্তরিত করেছেন৷ আজকে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল৷

তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ উপহার দিয়ে গেছেন৷ বঙ্গবন্ধু তার হৃদয়ে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতি লালন করতেন৷ মুক্তিযুদ্ধে হিন্দু মুসলমানসহ সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জীবন দিয়েছিলেন৷ তাই বঙ্গবন্ধু তার জীবনের শ্রেষ্ঠ সম্পদ সংবিধানের রাষ্ট্রীয় চারটি মূল নীতির মধ্যে ধর্ম নিরপেক্ষতা অন্তর্ভুক্ত করে একটি অসাম্প্রদায়িক সংবিধান প্রনয়ন করেছিলেন৷ বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর এটিকে অনেকে পরিবর্তন করতে চেয়েছিল৷

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ১৯৯১সালের নির্বাচনের পর হিন্দু মা-বোনেরা ঘরে থাকতে পারে নাই৷ তখন আপনাদের পাশে এসে আমি দাঁড়িয়েছিলাম৷ ২০০১ সালের নির্বাচনের পরেও বিএনপির সন্ত্রাসীরা হিন্দুদের উপর অমানসিক নির্যাতন করেছিলো৷

মন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালের পর বর্তমান রাষ্ট্রপতি ভোলা এসেছিলেন, কিন্ত তাকে মিটিং করতে দেয় নাই৷ আজকে বিএনপির সবাই শান্তিতে আছে৷ আমরা তাদের কোনো অত্যাচার করি নাই৷ এবং করবও না৷ সুতরাং অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে একটি শুভ সমাজ প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে৷ এবং আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী করতে হবে৷

এসময় ভোলা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভপতি অধ্যক্ষ দুলাল চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান৷

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক গৌরাঙ্গ চন্দ্র দে৷

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম সিদ্দিক, পুলিশ সুপার মোঃ মোকতার হোসেন, পৌর মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুস।






Related News

  • কে খায় ইবির হলের টাকা…
  • ‘প্রধানমন্ত্রীর’ প্রস্তাব রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ‘সেফ জোন’সহ ৩
  • রাষ্ট্রপতি : যাদের কথা-কাজে মিল আছে, তাদের ভোট দিন
  • প্রধানমন্ত্রী : ঢাকার চারপাশে এলিভেটেড রিং রোড হবে
  • প্রধানমন্ত্রী : স্কুল থেকেই শেখানো উচিত ট্রাফিক নিয়ম
  • আরো গভীর হলো বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক
  • মুক্তিযোদ্ধার ভাতা ভাই-বোনও পাবেন
  • যেকোনো দিন তফসিল ৩০ অক্টোবরের পর